ডিম

অর্গানিক ডিমঃ কি খাবেন এবং কেন

আধুনিকায়নের এ যুগে নতুন নতুন আবিষ্কারের ফলে আমাদের খাদ্যতালিকায় প্রতিনিয়ত যুক্ত হচ্ছে নিত্যনতুন উপাদান।  সেইসাথে খাদ্যে ভেজাল প্রয়োগকারীরাও হয়ে উঠছে আরো কৌশলী এবং ধূর্ত। আর তাই খাদ্য বাছাই করার সময় সর্তকতা অবলম্বন করা অতীব জরুরি। কিছুদিন আগেও আমরা দেখেছি, চীনের তৈরি নকল প্লাস্টিকের ডিমে বাজার সয়লাব হয়ে গিয়েছে। এমন অবস্থায় আপনি আসলে বাজার থেকে কি কিনে খাচ্ছেন সেটা নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্ব তৈরি হওয়াটাই স্বাভাবিক। আর তাই সময় হয়েছে সচেতন হবার, নিজের ও নিজের পরিবারের জন্য সেরাটা নিশ্চিত করার।

অর্গানিক ডিম কি, কেন আপনার অন্যান্য দিনের তুলনায় অর্গানিক ডিমের প্রতি বেশি মনোযোগ দেওয়া উচিত, অর্গানিক ডিম খেলে কি হবে, এর পুষ্টি গুনাগুন কি ইত্যাদি বিষয়ে বিশদ আলোচনা করার চেষ্টা করব। সুতরাং চলুন, জেনে নিই অর্গানিক ডিম সম্পর্কে।

অর্গানিক ডিম কি?

সাধারণত ডিমের উৎপাদন বৃদ্ধি এবং মুরগিকে মোটাতাজা করার জন্য পোল্ট্রি ফার্মের  মালিকেরা মুরগিকে প্রচুর পরিমাণে রাসায়নিক পদার্থ দ্বারা উৎপন্ন খাবার খেয়ে থাকেন। এর ফলে মুরগি মোটা তাজা হয় এবং পোল্ট্রি ফার্মের খরচ কমে আসে। কিন্তু পাশাপাশি তাতে মুরগির মাংস এবং ডিমের মধ্যেকার পুষ্টি গুনাগুনও কমে যায়। এছাড়াও এর মধ্যে বেশ কিছু মানব স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ থাকে যা মাংস এবং ডিম এর মাধ্যমে মানুষের শরীরে প্রবেশ করে। এই সমস্যার একটা সমাধান হিসেবেই অর্গানিক ডিমের উদ্ভব।

সাধারণত অর্গানিক ডিম বলতে সেই ধরনের ডিম কে বোঝায়, যে ডিম পাড়া মুরগি গুলো সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক পরিবেশে এবং ক্ষতিকর রাসায়নিক মুক্ত খাবার খেয়ে বড় হয়েছে। এসব মুরগির জন্য  রাসায়নিক সার বা কীটনাশক দিয়ে উৎপন্ন কোন খাবার ব্যবহার করা যাবে না, এবং এদের ঘুরে বেড়ানোর জন্য যথেষ্ট পরিমাণ খোলা জায়গা দরকার হয়। এছাড়াও এসমস্ত মুরগির উপরে কোন ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক অথবা হরমোন ব্যবহার করা যাবে না।

কেন খাবো অর্গানিক ডিম?

অর্গানিক ডিম উৎপন্ন করতে গেলে বেশকিছু স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হয়।  যার ফলে প্রতিটি মুরগির সর্বোচ্চ স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত হয় এবং সাধারণের তুলনায় অর্গানিক ডিমে এবং অর্গানিক ফার্মের মুরগিতে ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান থাকে না। যার ফলে অনেকেই মনে করেন, সাধারণ ডিমের তুলনায় অর্গানিক ডিমের স্বাদও খানিকটা বেশি।

রাসায়নিক সার ও কীটনাশকের ক্ষতিকর প্রভাবের কথা কম বেশি আমরা সবাই জানি।  ধীরে ধীরে শাকসবজি থেকে এসে এই ক্ষতিকর প্রভাবের কালো থাবা মাংস এবং ডিমের মধ্যেও এসে পড়েছে।  একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে একটি স্বাস্থ্যকর খাদ্য তালিকা তৈরি করতে গেলে সেই তালিকা থেকে ক্ষতিকর উপাদান বাদ দিতে হবে। আর এই কাজে আপনাকে সাহায্য করতেপারে অর্গানিক ডিম।এছাড়াও অর্গানিক ডিম উৎপাদনকারী মুরগিদের অ্যান্টিবায়োটিক এবং ভ্যাকসিন থেকে যতটা সম্ভব দূরে রাখা হয়। ফলে প্রতিটি ডিম থাকে ক্ষতিকর রাসায়নিক, কীটনাশক, এবং অ্যান্টিবায়োটিকের প্রভাবমুক্ত। প্যারাগন এগ্রো লিমিটেড, অর্গানিক ডিম উৎপাদনের প্রত্যেকটি  শর্ত মেনেই স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ অর্গানিক ডিম উৎপাদন ও বাজারজাত করে থাকে। মানসম্পন্ন পণ্য বাজারজাত করার জন্য প্যারাগন এগ্রো লিমিটেডের অর্গানিক ডিম ইতোমধ্যেই অর্জন করেছে ISO 22000, GMP, HACCP, এবং 100% HALAL সার্টিফিকেশন।

তবে সাধারণত অন্যান্য দিনের তুলনায় অর্গানিক ডিমের বাজার মূল্য খানিকটা বেশি হয়ে থাকে। কারণ রাসায়নিক সার কীটনাশক দিয়ে উৎপন্ন খাদ্য দ্রব্য ব্যবহার না করায় অর্গানিক ডিমের উৎপাদন খরচও সাধারণ ডিমের তুলনায় খানিকটা বেশি। তবে আপনি যদি  নিজস্ব তত্ত্বাবধানে স্বাস্থ্যসম্মতভাবে উৎপাদিত, প্রাকৃতিক পুষ্টিতে পরিপূর্ণ, এবং সম্পূর্ণ ভেজালমুক্ত ডিম খেতে  চান, তবে অর্গানিক ডিমই হতে পারে  আপনার প্রথম পছন্দ।

ডিমের পুষ্টিগুণ

ডিম হচ্ছে অসাধারণ পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ একটি খাবার।  সাধারণের থেকে অর্গানিক ডিমের পুষ্টিগুণ খানিকটা বেশি। চলুন দেখে নেয়া যাক রান্না করা একটি অর্গানিক ডিমে  ঠিক কতটুকু পরিমাণে পুষ্টি উপাদান রয়েছে।

উপাদানপরিমানদৈনিক চাহিদার শতকরা অংশ
ক্যালোরি৭০৪%
প্রোটিন৬ গ্রাম১২%
কার্বোহাইড্রেট১.৬ গ্রাম
ফ্যাট৬ গ্রাম৮%
কোলেস্টেরল১৪০ মিলি গ্রাম৪৭%
কপার০.১ মিলি গ্রাম৩%
আয়রন০.৯ মিলি গ্রাম৫%
ফসফরাস১০০ মিলি গ্রাম১০%
ফলেট২৪ মাইক্রো গ্রাম৬%
প্যানটোথেনিক অ্যাসিড০.৭ মিলি গ্রাম৭%
সেলেনিয়াম১৬.১ মাইক্রো গ্রাম২৩%
থিয়ামিন০.১ মিলি গ্রাম২%
জিংক০.৬ মিলি গ্রাম৪%
ভিটামিন এ২৪০ মাইক্রো গ্রাম৮%
ভিটামিন ডি৯.৬ মাইক্রো গ্রাম৪%
ভিটামিন ই১.২ মিলি গ্রাম৬%
ভিটামিন বি৬০.১ মিলি গ্রাম৪%
ভিটামিন বি১২০.৭ মাইক্রো গ্রাম১১%
রিবোফ্লাভিন০.২ মিলি গ্রাম২%

সূত্রঃ নিউট্রিশন ডাটা

অর্গানিক ডিম খাবার উপকারিতা

আমরা এতক্ষন যার নাম অর্গানিক ডিম এবং এর পুষ্টি গুনাগুন সম্বন্ধে। তবে চলুন দেখে নেয়া যাক অর্গানিক ডিম খেলে আপনি কি কি উপকার পেতে পারেন।

 

অতিরিক্ত ভিটামিন এর উৎস

অর্গানিক ডিমে ভিটামিন এ এবং ই এর মাত্রা  সাধারণ ডিমের তুলনায় বেশি। আর ভিটামিন এ এবং ই আপনার চুল ত্বক, এবং নখের গভীর থেকে পুষ্টি যোগায়। এছাড়া অর্গানিক ডিমে রয়েছে বিটা-ক্যারোটিনের এক বিশাল ভান্ডার যা কিনা আপনার হৃদরোগ কমাতে সাহায্য করে থাকে। এছাড়া অর্গানিক ডিমে পাওয়া নানা ধরণের এন্টি-অক্সিডেন্ট আপনার শরীরের লোহিত কণিকা এবং স্নায়ু কোষের ক্ষতিপূরণ করে থাকে।

 

 

হেলদি ফ্যাট

বেশ কিছু গবেষণা থেকে জানা যায়, সাধারণ ডিমের তুলনায়  অর্গানিক ডিমে ওমেগা-৩ ও ফ্যাটি এসিডের পরিমাণ প্রায় দ্বিগুণ। ওমেগা-৩ এমন একটি প্রয়োজনীয় ফ্যাট আপনার শরীরে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এবং আপনার মস্তিষ্ক বিকাশে সহায়তা করে। এছাড়াও সাধারণের তুলনায় অর্গানিক  ডিমে তিনভাগের একভাগ কোলেস্টেরল এবং চারভাগের একভাগ সম্পৃক্ত ফ্যাট থাকে। যার ফলে অর্গানিক দিন আপনার শরীরের হেলদি ফ্যাট কাউন্ট বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে।

রোগ ব্যাধির ঝুঁকি কমানো

অর্গানিক টিমে ধাকা হেলদি ফ্যাট, বিভিন্ন রকমের ভিটামিন এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আপনার ইমিউন সিস্টেমকে আরো শক্তিশালী করে, যার ফলে  নানা ধরনের রোগ বালাই থেকে আপনি সুস্থ থাকতে  পারেন। এছাড়াও ক্ষতিকর রাসায়নিক কীটনাশক,সার, এবং এন্টিবায়োটিক ব্যবহার না হওয়ায়  মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর কোনো উপাদান এর মাধ্যমে আপনার শরীরে প্রবেশ করতে পারবে না।

সাপোর্ট এনিমেল কেয়ার

অধিকাংশ পোল্ট্রি ফার্মের ই পরিবেশ স্বাস্থ্যসম্মত হয়না। পোল্ট্রি ফার্মের মালিকেরা বেশি লাভের আশায় কমদামি মানহীন খাবার মুরগিকে খাইয়ে থাকেন, লালন পালনের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ তাদের ফার্মে থাকেনা। ধারণক্ষমতার অনেক বেশি পরিমাণ মুরগি একটি বদ্ধ জায়গায় লালন পালন করা হয়। তবে অর্গানিক ডিম উৎপাদন করতে গেলে এমন কিছু করার সুযোগ নেই। প্রতিটি নিয়মকানুন কঠোরভাবে মেনে চললেই শুধুমাত্র অর্গানিক ডিম উৎপাদন সম্ভব। আর তাই অর্গানিক ডিম কিনে আপনি পোল্ট্রি ফার্মের স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ এবং খাবার নিশ্চিত করতে মানুষকে উৎসাহিত করতে পারেন।

শেষকথা

ডিম মানুষের খাদ্য তালিকা আছে বহু প্রাচীনকাল থেকেই। তবে ডিমের উৎপাদনে ব্যবহৃত ক্ষতিকর রাসায়নিক সার,কীটনাশক, এবং এন্টিবায়োটিক ডিমের প্রতি অনেক মানুষের আস্থা হারানোর কারণ হয়ে উঠছে। এ অবস্থায় ডিমের মতো সুস্বাদু এবং পুষ্টিকর একটি খাবারের প্রতি আপনার আস্থা ফিরিয়ে আনার একটি মাধ্যম হতে পারে অর্গানিক ডিম। প্যারাগন এগ্রো লিমিটেড স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ অর্গানিক ডিম উৎপাদন করে ডিমের প্রতি মানুষের হারিয়ে যাওয়া আস্থা ফেরত আনতে কাজ করে যাচ্ছে।  তাই নিজের ও নিজের পরিবারের খাদ্যতালিকায় যদি আপনি ডিম অন্তর্ভুক্ত করতে চান, নির্দ্বিধায় বেছে নিতে পারেন প্যারাগন এগ্রো লিমিটেডের উৎপাদিত অর্গানিক  ডিম। ভালো খান, সুস্থ থাকুন।

Back to list

Leave a Reply